1. pundrotvnews@gmail.com : admin :
চান্দিমালের দ্বিশতকের পর অস্ট্রেলিয়াকে গুঁড়িয়ে দিলেন জয়াসুরিয়া - Pundro TV
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০১:৪২ অপরাহ্ন

চান্দিমালের দ্বিশতকের পর অস্ট্রেলিয়াকে গুঁড়িয়ে দিলেন জয়াসুরিয়া

পুন্ড্র.টিভি ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০২২
dvdfgfd
dvdfgfd

গলে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের চতুর্থ দিনে স্বাগতিকদের জয় ইনিংস ও ৩৯ রানে। প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার ১০ উইকেটের জয়ে দুই টেস্টের সিরিজটি শেষ হলো ১-১ সমতায়।

সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে প্রথম ইনিংসে ৩৬৪ রান করা অস্ট্রেলিয়াকে সোমবার দ্বিতীয় ইনিংসে স্রেফ ১৫১ রানে গুটিয়ে দিল শ্রীলঙ্কা। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৫৫৪ রান করে ১৯০ রানের লিড নিয়েছিল লঙ্কানরা।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এবারের ৫৫৪ শ্রীলঙ্কার সর্বোচ্চ ইনিংস। আগের সেরা ৫৪৭ রান। এই দুইবারই দলটির বিপক্ষে পাঁচশ রান ছাড়াতে পেরেছে তারা।

রেকর্ড সংগ্রহ গড়ার পথে সবচেয়ে বড় অবদান রাখেন চান্দিমাল। ১১৮ রান নিয়ে এদিন খেলতে নেমে অপরাজিত থাকেন তিনি ২০৬ রান নিয়ে। ৩২৬ বল ও ৫৪৪ মিনিট স্থায়ী ইনিংসে ৫ ছক্কার সঙ্গে মারেন ১৬টি চার।

ক্যারিয়ারে আগের ১২ সেঞ্চুরির চারটিতেই দেড়শ পার করেছিলেন চান্দিমাল। যেখানে দুইবার ছিলেন অপরাজিতও। কিন্তু ডাবল সেঞ্চুরি পাওয়া হচ্ছিল না তার। এবার সেই স্বাদ পেলেন তিনি। গড়লেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ইনিংসের কীর্তিও। ২০০৭ সালে কুমার সাঙ্গাকারার ১৯২ রান ছিল আগের সেরা।

পরে সব আলো যেন কেড়ে নিলেন জয়াসুরিয়া। প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট নেওয়া লঙ্কান বোলার দ্বিতীয়ভাগেও নিলেন ৬টি। ম্যাচে মোট ১২ উইকেট নিয়ে টেস্ট অভিষেকে বাঁহাতি স্পিনারদের মধ্যে সর্বোচ্চ শিকারের রেকর্ড গড়েন তিনি। জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯৫০ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অ্যালফ ভ্যালেন্টাইনের ১১ উইকেট ও ২০২১ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রাভিন জয়াবিক্রমার ১১ উইকেট ছিল আগের সেরা। অভিষেক ম্যাচে ১০ উইকেট নেই আর কোনো বাঁহাতি স্পিনারের।

৬ উইকেটে ৪৩১ রান নিয়ে খেলতে নেমে দিনের প্রথম ঘণ্টা কাটিয়ে দেন চান্দিমাল ও রমেশ মেন্ডিস। দুইজনের ৬৮ রানের জুটি ভাঙে স্টার্কের বলে রমেশ এলবিডব্লিউ হলে।

কয়েক ওভার পর ২৮১ বলে ১৫০ রান স্পর্শ করেন চান্দিমাল। কিছুক্ষণ তাকে সঙ্গ দিয়ে প্যাট কামিন্সের বলে বোল্ড হয়ে যান মাহিশ থিকশানা। ৪৯৯ রান নিয়ে প্রথম সেশনে শেষ করে শ্রীলঙ্কা।

লাঞ্চের পর দ্রুত ফিরে যান জয়াসুরিয়া। তখনও দ্বিশতক থেকে ৪১ রান দূরে চান্দিমাল। এরপর রান তোলার গতি বাড়িয়ে দেন তিনি। কাসুন রাজিথাকে নিয়ে শেষ জুটিতে তোলেন ৪৯ রান। যেখানে ৪৭ রানই চান্দিমালের।

কামিন্স ও স্টার্ককে ওভারে একটি করে চার-ছক্কা মারেন তিনি। ১৮৫ রান থেকে স্টার্ককে টানা তিনে এক চার ও দুই ছক্কায় উড়িয়ে কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায় পা রাখেন চান্দিমাল, ৩১৬ বলে। স্টার্ক পরের ওভারে রাজিথাকে এলবিডব্লিউ করে শ্রীলঙ্কা ইনিংস গুটিয়ে দেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে ভালো শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার ও উসমান খাওয়াজার উদ্বোধনী জুটিতে ১৩ ওভারে চলে আসে ৪৯ রান। এরপরই ঘোর বিপদে পড়ে সফরকারীরা।

৪ চারে ২৪ রান করা ওয়ার্নারকে এলবিডব্লিউ করে দেন রমেশ। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি অস্ট্রেলিয়া ওপেনার। এরপর আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন দলটির ব্যাটসম্যানরা।

চা বিরতির পর এক ওভারে জোড়া শিকার ধরেন জয়াসুরিয়া। ৪ চারে ২৯ রান করে শর্ট লেগে ধরা পড়েন খাওয়াজা। আগের ইনিংসে সেঞ্চুরি করা স্টিভেন স্মিথ খুলতে পারেননি রানের খাতাই।

লড়াই চালানো মার্নাস লাবুশেনকে এলবিডব্লিউ করে বিদায় করেন জয়াসুরিয়া। এক ওভারে ক্যামেরন গ্রিন ও স্টার্ককে ফিরিয়ে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন বাঁহাতি এই স্পিনার।

কামিন্স ও ন্যাথান লায়নকে এক ওভারে বিদায় করেন মাহিশ থিকশানা। পরের ওভারে মিচেল সোয়াপসনের স্টাম্প এলোমেলো করে দেন জয়াসুরিয়া। জয়ের উল্লাসে মাতে শ্রীলঙ্কা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১
Developed By Bongshai IT