1. pundrotvnews@gmail.com : admin :
ঈদের কেনাকাটা নিয়ে ঝগড়া, নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু - Pundro TV
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন

ঈদের কেনাকাটা নিয়ে ঝগড়া, নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু

সবুজ মজুমদার, শেরপুর, বগুড়া
  • প্রকাশিতঃ বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২
dvdfgfd

বগুড়ার শেরপুরের রণবীরবালা গ্রামে মীম আক্তার (১৯) নামে এক নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বিয়ের কয়েক মাসের মাথায় এমন ঘটনা ঘটল।

dvdfgfd

বুধবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রণবীরবালা গ্রামের স্বামী মো. শাকিল আহম্মেদের বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

প্রতিবেশীরা জানান, কয়েক মাস আগে উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রণবীরবালা গ্রামের রবিউলে ইসলামের ছেলে শাকিলের সঙ্গে একই ইউনিয়নের কাফুরা পূর্বপাড়া গ্রামের মজনু মিয়ার মেয়ে মীমের বিয়ে হয়। মঙ্গলবার রাতে ঈদ উপহার কেনার জন্য টাকা-পয়সা নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল। তবে সে নিজে আত্মহত্যা করেছে নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে তা বলতে পারেননি তারা।

নিহত মীমের নিকটতম আত্মীয় শিল্পী খাতুন জানান, মেয়ে বিয়ে দেওয়ার পর থেকেই তাদের সঙ্গে ঝগড়াঝাটি লেগেই ছিল। গত মঙ্গলবার রাতে শাকিলের সঙ্গে ঈদ উপহার নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। পরে মীমকে বাটাম এবং ঝাঁটা দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

শেরপুর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে মীম আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী শাকিলকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুমিল্লার আদর্শ সদরে গৃহবধূ ফারজানা বেগম (২৯) হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ঘাতক স্বামী মো. ইকবাল হোসেন (৩৮)কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এছাড়া ইকবালের বাবা আব্দুল হাকিমসহ আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।, ইকবালকে আটকের পর হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সে একজন পেশাদার জুয়াড়ি, মূলত জুয়া খেলার টাকা যোগাতেই সে চুরিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত হতো যার কারণে তার সঙ্গে তার স্ত্রী ফারজানার প্রায়ই কথাকাটাকাটি ও মনোমালিন্য হতো।  গত ২৩শে সেপ্টেম্বর কুমিল্লা কোতোয়ালি থানায় তার নামে একটি চুরির মামলার ওয়ারেন্ট জারি হয়েছে, যার কারণে সে যেকোনো সময় গ্রেপ্তার হতে পারে। সে গ্রেপ্তারের পরে জামিনে বের হওয়ার জন্য পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে ৫ হাজার টাকা জমিয়ে স্ত্রী ফারজানাকে দেয় এবং বলে আমি গ্রেপ্তার হলে তুমি এই ৫ হাজার টাকার সঙ্গে তোমার বাবার বাড়ি থেকে আরও কিছু টাকা নিয়ে আমাকে জামিনে বের করবা। তার কিছুদিন পরেই গত ১১ই মার্চ ইকবাল তার নামে থাকা চুরির মামলার ওয়ারেন্টে গ্রেপ্তার হয়ে জেলে যায়। এদিকে স্বামী জেলে থাকায় স্ত্রী ফারজানা ভাড়া বাসায় শিশু সন্তানকে নিয়ে কি করবে কোনো কিছু ভেবে না পেয়ে ইকবালের রেখে যাওয়া ৫ হাজার টাকা দিয়ে ট্রাক ভাড়া করে ভাড়া বাসার সমস্ত মালামাল নিয়ে বাপের বাড়িতে চলে যায়

ইকবালের স্ত্রী তাকে জামিনে বের করার প্রতিশ্রুতি দিয়েও জামিনে বের করার ব্যাপারে কোনো তৎপরতা প্রদর্শন না করায় তার স্ত্রীর প্রতি ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ ক্ষোভ থেকেই তাকে হত্যা করে।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১
Developed By Bongshai IT