1. pundrotvnews@gmail.com : admin :
শাহবাজকে নিয়ে ভারতীয় বিশ্লেষকরা যা ভাবছেন - Pundro TV
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন

শাহবাজকে নিয়ে ভারতীয় বিশ্লেষকরা যা ভাবছেন

পুন্ড্র.টিভি ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২
dvdfgfd

পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ বলেছেন, ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক চায় পাকিস্তান। তবে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত সেটি সম্ভব নয়।

dvdfgfd

প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে শাহবাজ শরিফ এ কথা বলেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর শাহবাজ শরিফকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অভিনন্দন বার্তায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখার কথা বলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

ভারতীয় নেতাদের সঙ্গে শরিফ পরিবারের সম্পর্ক সাধারণত সৌহার্দপূর্ণ। শাহবাজ ২০১৩ সালে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ভারতে গিয়েছিলেন। অন্যদিকে ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, শরিফ পরিবারের একটি বিয়েতে যোগ দিয়েছেন।

২০১৫ সালে পাকিস্তানে আচমকাই একটি সফর করেছিলেন মোদি। সেই সময়ে প্রধানমন্ত্রী ছিলেন শাহবাজের বড় ভাই নওয়াজ শরিফ।

ভারতীয় বিশ্লেষকরা বলছেন, বছরের পর বছর চলতে থাকা উত্তেজনা প্রশমিত করতে কূটনৈতিক পথেরই আশ্রয় নেবেন পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী, এমনটিই আশা করছেন তারা।

নয়াদিল্লি মনে করছে, নতুন প্রধানমন্ত্রী সমঝোতার পথেই হাঁটবেন এবং সমালোচনার পরিবর্তে আলোচনার মাধ্যমে বিরোধের নিষ্পত্তি করতে চাইবেন, যা তার পূর্বসূরিরা করেননি।

নয়াদিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া ইউনিভার্সিটির আন্তর্জাতিক স্টাডিজের অধ্যাপক অজয় দর্শন বেহেরা এএফপিকে বলেছেন, ‘তিনি এমন কিছু করবেন না যা ভারতকে চরম বিরোধিতার পর্যায়ে নিয়ে যাবে।’

২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার পর পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের অবনতি হয়। মোদি সেই সম্পর্ক ঠিক করতে তার সফরকালে কয়েক দফা আলোচনা চালিয়েছিলেন।

কিন্তু পরের বছর কাশ্মীরে নতুন করে সংঘাতের পর আলোচনার সব দরজা বন্ধ হয়ে যায়।  ২০১৯ সালে উপত্যকার এই অঞ্চলে একটির পর একটি বিমান হামলার জেরে দুই দেশের মধ্যে আবারও যুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল।

একই বছরের আগস্ট মাসে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকারের সময় বিতর্কিত কাশ্মীর অঞ্চলের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নেওয়ার জন্য ভারতের একতরফা পদক্ষেপ দুই দেশের সম্পর্ককে অতল গহ্বরে ঠেলে দেয়।

কূটনৈতিক সম্পর্কের পাশাপাশি পাকিস্তানের সঙ্গে সরাসরি বাণিজ্য স্থগিত করে দিয়েছিল ভারত, যা পাকিস্তান কর্তৃক অবৈধ হিসেবে দেখা হয়েছিল। ইমরান খানও মোদির সমালোচক ছিলেন এবং তার বিরুদ্ধে ‘মুসলিমদের গণহত্যা’র অভিযোগ তুলেছিলেন ।

ইসলামাবাদের সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড সিকিউরিটি স্টাডিজের ইমতিয়াজ গুল বলেছেন, ভারতীয় নেতাদের সঙ্গে শরিফ ভাইদের সম্পর্ক সাধারণত সৌহার্দপূর্ণ। আর তাই ভারতের জন্য সংলাপ পুনরায় শুরু করার এটি একটি ভালো সময়।

দিল্লিভিত্তিক রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুজিত দত্ত বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী পরিবর্তনের মাধ্যমে শাহবাজকে সাম্প্রতিক বছরগুলোর বিদ্বেষকে অতিক্রম করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে, তার ইতিবাচক পদক্ষেপের দিকে তাকিয়ে রয়েছে ভারত।

তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের কূটনৈতিক নিয়ম মেনে এবং আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে বিরোধের শান্তিপূর্ণ সমাধানের ভিত্তিতে পাকিস্তানের সঙ্গে আমাদের একটি নতুন সম্পর্ক স্থাপন দরকার। এটি অবশ্যই পাকিস্তান এবং ভারত উভয়কে সাহায্য করবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১
Developed By Bongshai IT