1. pundrotvnews@gmail.com : admin :
‘জলতরঙ্গে বিজয় নিশান’ দেখতে মানুষের ভীড়! ভিডিও - Pundro TV
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০১:১৯ অপরাহ্ন

‘জলতরঙ্গে বিজয় নিশান’ দেখতে মানুষের ভীড়! ভিডিও

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশিতঃ রবিবার, ২৭ মার্চ, ২০২২
dvdfgfd

একটি মজাপুকুর সংস্কার করে আলোকসজ্জার মাধ্যমে বাংলাদেশের জতীয় পতাকা ফুটে তোলা হয়েছে। পুরো পুকুরজুড়ে ১৬০ ফুট লম্বা এবং ৯৬ ফুট চওড়ার করে ওই জাতীয় পতাকা ফুটে তোলা হয়। এতে ৯২ হাজার ৩৪০টি মরিচবাতি ব্যবহার করা হয়েছে। আলোকচিত্রটির নাম করণ করা হয়েছে ‘জলতরঙ্গে বিজয় নিশান’। স্বাধীনতা দিবস ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিলেন বগুড়ার ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার মহন্ত। ২৬ মার্চের সূর্য ডুবে যাওয়ার সাথে সাথে সুইচ টিপে আয়োজনটির উদ্বোধন করা হয়। বাতি জা¦লার পরেই পুরো এলাকা আলোর মূর্ছনায় বর্ণিল হয়ে ওঠে।

dvdfgfd

বগুড়ার ধুনট উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন একটি মজাপুকর সংস্কারের মাধ্যে ৩০ ফিট গভীরে বৈদ্যুতিক মরিচ বাতির মাধ্যমে জাতীয় পতাকা তৈরির পাশাপাশি বাংলাদেশের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডগুলোর চিত্রও তুলে ধরা হয়েছে সেখানে। মেট্রো রেল, পদ্মাসেতু, রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, ফ্লাই ওভার, বঙ্গবন্ধু স্যাটালাইট দৃষ্টি নন্দনভাবে ফুটে তুলেছেন সঞ্জয় কুমার মহন্ত। তার এই আয়োজন দেখার জন্য জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে উৎসুক মানুষ পুকুর পাড়ে ভীড় করছে। এই কর্মযোগ্য দেখতে আসা বীর মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেন বলেন,যুদ্ধ করেছি দেশ স্বাধীন করেছি। আজ সেই ইতিহাস দেখতে পেয়ে ভালো লাগছে। আগামী প্রযন্ম অনে কিছু শিখতে পাবে।

এই আয়োজটি উদ্বোধন করেন বগুড়া জেলা প্রশাসক মো:জিয়াউল হক। এসময় জেলা প্রশাসক বলেন, এই আয়োজনটি একটি বিনোদনের মধ্য দিয়ে পুরো বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্রকর্ম তুলেধরা হয়েছে। স্বাধীনতা দিবসের এমন ব্যতিক্রম আয়োজন সবার মধ্যে দেশপ্রেমকে জাগ্রত করবে।

অনুষ্ঠানের অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া -৫ আসনের (শেরপুর-ধনুট এলাকার) সাংসদ আলহাজ¦ হাবিবর রহমান। আয়োজনটি সম্পর্কে তিনি বলেন, আমি নিজে একজন মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীন দেশ ও পতাকার জন্য আমরা যুদ্ধ করেছি। দেশ স্বাধীন করেছি। আমাদের যুদ্ধের বিনিময়ে অর্জিত পতাকার এমন প্রদর্শন দেখে আমি আবেগ ধরে রাখতে পারছি না। আগামি প্রযন্ম এসব দেখে বঙ্গবন্ধুকে আরো ভালো ভাবে জানবে।

আয়োজনটি সম্পর্কে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি মানুষের শ্রদ্ধাবোধ বাড়ানোর চিন্তা থেকেই আমি এমন আয়োজন করেছি। দীর্ঘদিন ধরে আজকের দিনটি পালনের জন্য ব্যতিক্রমী আইডিয়া বের করার চেষ্টা করেছি। পরে আমার মাথায় এই পরিকল্পনাটি এসেছে। আমি সব নকশা একাই করেছি। এখানে বাংলাদেশের ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকান্ডগুলোকে খন্ডখন্ডভাবে চিত্রায়ীত করেছি। এতে এক নজরে পুরো বাংলাদেশের চিত্র মানুষের চোখের সামনে ফুটে উঠবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১
Developed By Bongshai IT