1. pundrotvnews@gmail.com : admin :
৯ বছর বয়সেই বাজিমাত - Pundro TV
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

৯ বছর বয়সেই বাজিমাত

পুন্ড্র.টিভি ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
dvdfgfd

রিয়ানশ সুরানি বয়স মাত্র ৯ বছর। এতটুকু বয়সেই যোগব্যায়ামের চর্চা করছে সে। শুধু নিজে যোগব্যায়াম করেই বসে থাকেনি; বরং এ ব্যায়ামের নানা কৌশল রপ্ত করে অন্যদেরও প্রশিক্ষণ দিচ্ছে সে।

dvdfgfd

খুদে প্রশিক্ষক হিসেবে এরই মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে শিশু রিয়ানশ; পেয়েছে স্বীকৃতিও। বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী সনদপ্রাপ্ত যোগব্যায়ামের প্রশিক্ষক হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে  তার নাম উঠেছে।

রিয়ানশের মা–বাবা ভারতীয়। তবে সে পরিবারের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে থাকে । গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে,  চার বছর বয়স থেকেই, থেকেই যোগব্যায়ামের চর্চা শুরু করেছে রিয়ানশ। তার মা–বাবাও যোগব্যায়াম ভীষণ পছন্দ করেন। তাঁদের হাত ধরেই যোগব্যায়ামের চর্চা শুরু হয় শিশু রিয়ানশের।

ভারতের ঋষিকেশে আনন্দ শেখর ইয়োগা স্কুলে যোগব্যায়াম প্রশিক্ষকদের ২০০ ঘণ্টার প্রশিক্ষণ কোর্সে ভর্তি হয়েছিলেন রিয়ানশের মা–বাবা। সে সময় রিয়ানশও তাঁদের সঙ্গে ছিল। গিনেস কর্তৃপক্ষকে রিয়ানশ বলে, ‘হঠাৎ বুঝতে পারি, আমি কোর্সটি ভালোবেসে ফেলেছি। একসময় প্রশিক্ষণের কাজও বেশ ভালো লাগা শুরু করে। এখন নিজেই যোগব্যায়ামের প্রশিক্ষণ দিচ্ছি।’

অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরুর আগে প্রশিক্ষণের সব ধাপ সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করেছে রিয়ানশ এবং পেয়েছে সনদ। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার রিয়ানশকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে গিনেস কর্তৃপক্ষ। এখন বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী সনদপ্রাপ্ত যোগব্যায়ামের প্রশিক্ষক সে। স্কুলে সহপাঠীদের যোগব্যায়াম শেখানো ছাড়াও সে ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক হিসেবে স্কুলের বাইরে যোগব্যায়াম শেখানোর কাজে যুক্ত আছে।

এদিকে বিশ্ব রেকর্ড গড়ায় বেশ খুশি রিয়ানশ। খুদে এ প্রশিক্ষক বলেন, ‘আগে আমি ভাবতাম যোগব্যায়াম শুধু শারীরিক গঠন ঠিক রাখতে ও নির্বিঘ্ন শ্বাস নিতে সহায়তা করে। কিন্তু এটি এর চেয়েও বেশি কিছু করে।’

রিয়ানশ বলেন, প্রশিক্ষণে আমি শুধু যোগব্যায়ামের কলাকৌশলই নয়; বরং শরীরবিদ্যার দর্শন, আয়ুর্বেদের উপকারিতাসহ নানা বিষয়ে শিখেছি। সেসব শিক্ষা এখন আমি বিভিন্ন বয়সের প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারছি।’

পড়াশোনার পাশাপাশি যোগব্যায়াম প্রশিক্ষণের কাজ চালিয়ে অর্থ জমা করতে চায় রিয়ানশ। এ অর্থের নির্দিষ্ট একটি অংশ দাতব্যকাজে ব্যয় করার ইচ্ছা রয়েছে তার। ভবিষ্যতে ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি প্রযুক্তি ব্যবহার করে যোগব্যায়াম প্রশিক্ষণ দেওয়ার পরিকল্পনাও করছে খুদে এ প্রশিক্ষক।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১
Developed By Bongshai IT