1. shahajahanbabu@gmail.com : admin :
পোষ্টটি দেয়া হয় নিজেকে ভাইরাল করার জন্য ! - Pundro TV
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৯:১৮ অপরাহ্ন



পোষ্টটি দেয়া হয় নিজেকে ভাইরাল করার জন্য !

পুন্ড্র.টিভি ডেস্ক
  • প্রকাশিতঃ বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

‘ভাতের বিনিময়ে’ পড়াতে চাই পোষ্টটি দেয়া হয়েছিল ছিলো নিজেকে ভাইরাল করার জন্য। সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে মানুষের আবেগ কুড়াতেই আলমগীর কবীর এমন পোস্টার দেয়ালে এটেছিলো। অনুসন্ধানে আলমগীরের এমন মতলব উন্মোচন হয়েছে। তার ফেসবুকের অশ্লিল এবং অসামাজিক ছবি এবং ম্যাসেঞ্জারে বিভিন্ন জনের সাথে আপত্তিকর চ্যাটিংয়ের ক্রীণসর্টগুলোও এখন ভাইরাল হয়েছে। তাবে আলমগীর কবীর দাবি করেছেন ভাইরাল হওয়া জন্য নয় নিজের একান্ত প্রয়োজনেই পোষ্টটি করেছিলেন তিনি।

এদিকে গণমাধ্যেমে এধরনের প্রতিবেদনগুলো দেখে দেশের অনেক হৃদয়বান ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান তাকে সাহায্য এবং চাকরি দেয়ার অফার দিতে থাকে। মজার বিষয় আলমগীর কোন প্রতিষ্ঠানের চাকরি অফারে সাড়া দেননি। তিনি বে-সরকারি চাকরি করবেনা বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। তার এমন আচরণে সন্দেহের সৃষ্টি হয়।
বুধবার সকালে বগুড়ার জহুরুল নগর এলাকায় যেখানে ২০১০ সাল থেকে দীর্ঘ সময়ধরে একটি বাড়িতে অবস্থান করছেন তিনি। আশেপাশে বসবাসরতদের সাথে তার ভাইরাল হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বেরিয়ে আসে থলের বিড়াল।
এদিকে বিভিন্ন মিডিয়ায় সম্মান শ্রেণির পরীক্ষার ফলাফলে নিজেকে দেশ সেরা উল্লেখ করে বক্তব্য দিয়েছেন আমগীর কবীর। তার সেই তথ্যও মিথ্যা। বুধবার এবিষয়ে জানতে বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান উম্মুল খায়ের মোসা: শুলশান আরা বানু বলেন, সে অনার্স ফাইনাল পরীক্ষায় ডিপার্টমেন্ট প্রথম হয়েছে কিন্তু সারাদেশের মধ্যে সেরা নয়। আর মাস্টার্স পরীক্ষায় সে ডিপার্টমেন্টে ২২ তম হয়েছে। জাতীয় ভাবে সেরা হলে তার তালিকা আমাদের কাছে বোর্ড থেকে আসতো। তারাও তার এমন মিথ্যা পোস্টের কারণে বিব্রত হয়েছেন।

বগুড়া শহরের জহুরুল নগর এলাকার বাসিন্দা ফরহাদ হোসেন পারভেজ বলেন, আলমগীর আমার দীর্ঘদিনের পরিচিত। সে অনেক আগে থেকেই সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। গভীর রাতে সর্ট পোশাক পড়ে আপত্তিকর পোস্ট দেয় মাঝেমধ্যেই। বিদেশী সিগারেট, বিয়ার সামনে রেখে ছবিতুলে পোস্ট দেয়াসহ অনেক রকম দৃষ্টিকটু ছবি এবং লেখা পোস্ট দেয় সে। ভাতের অভাব তার কখনোই ছিলো না। যে বাড়িতে সে থাকে ওই বাড়ির মালিক তাকে ফ্রিতে থাকা এবং খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে। তার কাজ হচ্ছে ওই বাড়ির ভাড়ার টাকা তুলে ঢাকায় অবস্থানরত বাড়ির মালিককে পৌছানো। বিনিময়ে সে ফ্রিতে থাকছে এবং খাচ্ছেন। পারভেজ আরো বলেন, তার একটি আইটি ফর্ম ছিলো সেখানে করোনার আগে তাকে কাজ করার অফার দিয়েছিলাম। আলমগীর আমাকে বলেছে আমি চাকরি করবো না। বসে থেকে ইনকাম করারো।

তার পোস্টকরা উল্লেখযোগ্য স্ক্রীণ সর্টগুলোর একটিতে দেখা যাচ্ছে একটি লম্বা সোজা মূলার ছবি হাতে বিকৃত ভঙ্গিতে তাকিয়ে আছে। আর সেখানে লেখা আছে ‘ হায় বন্দুরা কেমন আচেন সবাই ??? আমি এসে গেছিইইই তোমাদের লেপ গরম করতে’ (বানগুলো ভুলসহ হুবহু স্ট্যাটার্স এটি)। আরেকটি পোস্টে খালি শরীরে একটি টাউজার পড়ে বিকৃত ভঙ্গিতে তোলা ছবিতে আলমগীর লিখেছেন ‘ কারো করোনার টিকা দেওয়ার ডেট ভুলে গেলে আমার কাছে এসো’। অপর একটি পোস্টে তিনি লিখেছেন ‘পড়াইতে চাই লিখে পোস্টর লাগিয়েছি মাশাআল্লাহ…. এপর্যন্ত ৪টা মেয়ে ফোন দিয়ে সরাসরি বিয়ে করতে চেয়েছে। মানুষ এতোটা মানবিক হয় কি করে রে ভাই??’। এছাড়াও মদ, সিগারেটসহ অসংখ্য আপত্তিকর পোস্টের স্ক্রীণ সর্ট এখন ফেসবুকে ঘুরছে।
আলমগীরের পোস্টারটি ছিলো প্রতারনামূলক। এই সংবাদ গনমাধ্যমে প্রকাশ হলে নরেচরে বসে প্রশাসন এবং সাধারণ মানুষ। এরপর থেকেই বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা, মিডিয়া হাউজের কর্মী, প্রশাসন নানা ভাবে খোজ নেয়া শুরু করেন।

বুধবার সকাল সারে এগারোটায় জহুরুল নগর এলাকায় তার থাকার কক্ষে গিয়ে টানা বিশ মিনিট দরজায় নক করলেও সাড়া দেয়নি। পরে পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তীর কক্ষে নিয়ে যান। সেখানে তাকে পুলিশ ঘন্টাখানেক জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন।

পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সাংবাদিকরা তার সাথে কথা বলেন। এসময় তিনি তারমত করেই কথা বলেন। তিনি ভাইরাল হওয়ার আকাঙ্খার কথা বরাবরেই অস্বীকার করেছেন। এক পর্যায়ে তার আপত্তিকর ছবিগুলোর নিয়ে কথা বললে নানা যুক্তি দেখান পোস্টোগুলোর ব্যপারে।
তার ওই পোস্টারে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি ইনিয়ে বিনিয়ে তার অবস্থানকেই সঠিক বলে তুলে ধরেন।

এবিষয়ে বগুড়ার পুলিশ সুপার সুদীপ সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বলেন, বাংলাদেশ এখন এমন পর্যায়ে নেই যে একজন যুবক না খেয়ে থাকবে। তার এই পোস্টে সবাই বিব্রত। আমরা তাকে বুঝিয়েছি এবং তার একটি চাকরির ব্যবস্থা করছি।

https://www.facebook.com/pundrotvbd/videos/850238212442490

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২
Developed By ATOZ IT HOST